কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেসে নিজের থিমে রিডাক্স ফ্রেমওয়ার্ক যোগ করব?

Screen Shot 2014-07-16 at 10.14.36 PM
ওয়ার্ডপ্রেসের যতগুলো অ্যাডমিন প্যানেল বা অপশন ফ্রেমওয়ার্ক আছে তাদের মাঝে রিডাক্স অন্যতম। অনেকগুলো চমৎকার ফিচার, প্রচুর ফিল্ডের সমারোহ এবং সহজ ব্যবহারোপযোগিতার কারনে রিডাক্স খুব দ্রুতই ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডেভেলপার দের দৃষ্টি আকর্ষন করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও রিডাক্সে ডেভেলপাররা ক্রমাগত এটাকে আপডেট করে চলেছেন, যার ফলে আমরা মাঝেমাঝেই পাচ্ছি নিত্য নতুন ফিচার। আজকের এই আর্টিকেলে আমি দেখাবো কিভাবে আমরা আমাদের থিমে এই রিডাক্স ফ্রেমওয়ার্ক দিয়ে তৈরী অপশন প্যানেল যোগ করব

১. এজন্য প্রথমেই https://github.com/ReduxFramework/ReduxFramework/ এখানে ডানদিকের নিচে গিয়ে “Download zip” বাটনে ক্লিক করে রিডাক্স ফ্রেমওয়ার্ক ডাউনলোড করে নিন

২. ডাউনলোড করা জিপ ফাইলটি আনজিপ/এক্সট্রাক্ট করলে redux-framework-master নামে একটা ফোল্ডার পাবেন। সেটা ওপেন করে একমাত্র ReduxCore এবং sample নামের ফোল্ডার দুটো রাখুন, আর class.redux-plugin.php, index.php, license.txt, redux-framework.php নামের ফাইলগুলো রেখে বাকি সবকিছু ডিলেট করে দিন। ডিলেট করার পরে redux-framework-master ফোল্ডার এর কনটেন্ট হবে নিচের মত

Screen Shot 2014-07-16 at 9.47.41 PM

৩. এবার আপনার থিমে libs নামে একটা ডিরেক্টরী তৈরী করে তার ভেতরে এই redux-framework-master ফোল্ডার পেস্ট করে দিন।

৪. এবার আপনার থিমের functions.php ফাইলে নিচের কোড টুকু যোগ করুন

৫. এবার আপনার থিম অ্যাক্টিভেট করে ওয়ার্ডপ্রেস এর অ্যাডমিন প্যানেলে আসলেই বামপাশে দেখবেন “Sample Options” নামে একটা মেনু চলে এসেছে, যা আসলে রিডাক্সের স্যাম্পল ফাইল টির আউটপুট।

Screen Shot 2014-07-16 at 9.58.57 PM

ব্যাস, আমাদের থিমে রিডাক্স ফ্রেমওয়ার্ক যোগ করা শেষ। একদম সহজ, তাই না? এখন আপনি sample-config.php ফাইলটি স্টাডি করে দেখতে পারেন কিভাবে বিভিন্ন ধরনের ফিল্ড যোগ করা হয়েছে। লাইন নম্বর ২৩৯ থেকে এই সেকশন এবং ফিল্ড গুলোর ডেফিনিশন শুরু হয়েছে। এখন একটা বিষয় খুবই জরুরী, আর সেটা হল এই যে আমাদের থিমের ইউজার রা রিডাক্সের সাহায্যে বিভিন্ন ডেটা ইনপুট দিবে – আমরা সেগুলো থিমে ব্যবহার করব কিভাবে। এর জন্য আমাদের দেখতে হবে ১৫৩৫ নম্বর লাইনে (বর্তমান আপডেট অনুযায়ী) এই লাইনটি আছে

এখানে আপনি আপনার পছন্দ মতো ভ্যারিয়েবলের নাম লিখতে পারবেন। যেমন আপনার থিমের নাম যদি হয় FlyHigh তাহলে আপনি লিখতে পারেন

এটা করা হয়ে গেলে আপনার থিমের ফাইলে সবার উপরে এই লাইনটি লিখবেন

এর পর থেকে রিডাক্সের যেকোন ফিল্ডের ডেটা আপনি অ্যাক্সেস করতে পারবেন $flyhigh[‘fieldid’] এইভাবে। ফিল্ডের আইডি কিভাবে লিখতে হয় এটা জানতে হলে আপনি স্যাম্পল কনফিগ ফাইলে অনেক উদাহরণ পাবেন, যেমন ধরুন একটা ফিল্ডের ডেফিনিশন হল

উপরের উদাহরণে ফিল্ডের আইডি হল my_text_field, আর এই ফিল্ডের ভ্যালু পেতে চাইলে আমাদের লিখতে হবে $flyhigh[‘my_text_field’] । আরেকটা জিনিস, সেটা হল যে “Sample Options” নামের মেনুর নাম পরিবর্তন করতে চাইলে নিচের লাইনটি খুঁজে বের করে আপনার পছন্দ মত মেনু নাম দিন

এই স্যাম্পল ফাইলটি আপনার জানার সুবিধার্থে রিডাক্স টিম করে দিয়েছে। এই ফাইলে পরিবর্তন না করে বরং একই ফোল্ডারে দেখবেন barebones-config.php নামে আরেকটা ফাইল রয়েছে, যেটাতে শুধু যেটুকু দরকার সেটুকুই কোড আছে। আপনি সেই ফাইলটি আপনার থিমের কোথাও কপি করে নিয়ে আপনার থিমের জন্য নিজের মত করে অ্যাডমিন প্যানেল বানাতে পারবেন।

আশাকরি আর্টিকেলটি আপনাদের ভালো লেগেছে। তারপরেও মন্তব্যে জানালে খুশি হব 🙂

19 thoughts on “কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেসে নিজের থিমে রিডাক্স ফ্রেমওয়ার্ক যোগ করব?”

  1. ভালো হয়েছে ভাইয়া 🙂
    আশা করি কন্টিনিউ করবেন।

  2. This is well informative article. I am really learned & revised my learning through your article. Please continue articles about WordPress Theme.
    Thanks

  3. এতো সহজ!! এতদিন অপশন ট্রি নিইয়ে কাজ করেছি। নেক্সট টাইম থেকে রিডাক্স!!!!! 😀

  4. বিষয় যত কঠিন ই হক না কেন, সহজ ভাবে উপস্থাপন করতে পারলে, তা সবসমই সহজ….”আমরা হাসিন ভাই এর বাংলা ভিডিও টিউটরিয়াল চাই, ওয়াডপ্রেস এর উপর”
    ধন্যবাদ।

  5. ভাইয়া, অসাধারণ আর্টিকেল। খুবই দরকারী। অনেক ফ্রেমওয়ার্ক নিয়ে কাজ করলেও রিডাক্স নিয়ে কাজ করা হয়নি। দেখি এবার থেকে রিডাক্স নিয়ে কাজ করবো।

  6. Thanks, Bro Hasin, you are always awesome and I enjoy your facebook wordpressians posts.
    You are the gem of our country and keep it up.
    Is there a way to rename sample-config.php with my own file name and again may I change the name of the folder ‘ReduxCore’ to anything I want? As we could do with SMOF. I will be really glad if I get a clear direction.

    Rafique

  7. ভয়ানক একটা ব্যপার – কত সহজ ভাবে উপস্থান করলেন। অনেকটা SMOF এর মতই। ধন্যবাদ ভাইয়া 🙂

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *